Eid-ul-Adha Safety

 আসন্ন  পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা। নাগরিক জীবনের নিরাপত্তা বিধান এবং ঈদের অনাবিল আনন্দ ও শান্তি অটুট রাখতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছে।

 

পবিত্র ঈদুল আযহায় পশু ক্রয়-বিক্রয় ও পরিবেশ রক্ষায় সচেতন থাকুন:

০১. কোরবানীর হাঁটে পশু ক্রয়-বিক্রয়ের সময় অর্থ লেনদেনে সতর্ক থাকুন। প্রয়োজনে পুলিশের সহায়তা নিন।
০২. পশু ক্রয়-বিক্রয়ের সময় বড় অংকের টাকা লেনদেন হয় বিধায় কিছু অসৎ ব্যবসায়ী জাল টাকার নোট বান্ডিলে দিয়ে দিতে পারে। জাল নোট সংক্রান্তে সন্দেহ দেখা দিলে পুলিশের সহায়তা নিন।
০৩. দৃষ্টিগোচর হয় এমন স্থানে হাসিল এর মূল্য তালিকা ঝুলিয়ে রাখুন।
০৪. কোরবানীর পশুর হাসিল পরিশোধ করুন। হাসিল পরিশোধের রশিদ সাথে রাখুন।
০৫. কোরবানীর পশু বহনকারী ট্রাকে অথবা অন্য কোন পরিবহণে কেউ চাঁদা দাবী করলে নিকটস্থ থানা বা পুলিশ কন্ট্রোলরুমে জানান।
০৬. যানবাহণ চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক ইজারা দেয়া স্থানেই শুধু পশুর হাঁট বসবে।
০৭. হাঁটের জন্য নির্ধারিত চৌহদ্দির বাহিরে পশুর হাঁট বিস্তৃত করা যাবে না।
০৮. গরুর বেপারীগন নির্ধারিত সময়ের পূর্বে গরু নিয়ে ঢাকায় প্রবেশ করবেন না।
০৯. ক্রয়কৃত পশু বহনকারীর পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হোন। প্রয়োজনে তার ফোন নম্বর রাখুৃন।
১০. কোরবানী একটি ধর্মীয় অনুশাসণ এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। কোরবানীর পরে পরিবেশ যাতে দূষিত না হয় এবং কোরবানীর পবিত্রতার যাতে নষ্ট না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। সুন্দর পরিবেশ রক্ষা করে ধর্মীয় দায়িত্ব পালন করুন।
১১.  পশু জবাইয়ের পূর্বে গর্ত করে নিন। গর্তের মধ্যে রক্ত, গোবর ও পরিত্যক্ত অংশ পূঁতে রাখুন। জবাইকৃত পশুর উচ্ছিষ্টাংশ নিকটতম ডাস্টবিনে ফেলুন।
১২. জবাইকৃত পশুর রক্ত ও অপ্রয়োজনীয় অংশ নর্দমা কিংবা যেখানে সেখানে ফেলবেন না। এতে পরিবেশ দূষিত হয়, মশা-মাছির বংশ বৃদ্ধি পায় এবং মারাত্মক রোগ ছড়ায়।
১৩. কোরবানীর পশুর বর্জ্য দ্রুত অপসারণের জন্য প্রয়োজনে সিটি কর্পোরেশনে সংবাদ দিন।
১৪. কোরবানীর বর্জ্য অপসারণ ও কোরবানীর গোস্ত বিতরণে পরিবেশ বান্ধব ব্যাগ/পাত্র ব্যবহার করুন।
১৫. ঈদগাহে যাওয়ার সময় নগদ অর্থ বহন পরিহার করুন। মোবাইল ফোন বহন করার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।